Breaking News

ঝগড়া করতে গিয়েই সাঁজির প্রেমে পড়েছে অর্জুন! ভুল বিয়ে ভেঙে এগিয়ে যাওয়ার বার্তা খড়কুটোতে! প্রশংসায় পঞ্চমুখ দর্শক

স্টার জলসার অন্যতম জনপ্রিয় ধারাবাহিক হয়ে উঠেছে খড়কুটো। যৌথ পরিবারের গল্প, সেই পরিবারের বিভিন্ন সদস্যদের নানান সমস্যা ও তার সমাধানে গুনগুনের প্রকাশের কথা তুলে ধরা হয়েছে। তাই বরাবর তা পছন্দের ধারাবাহিক হয়ে রয়েছে দর্শকদের।

তবে গুনগুন আর সৌজন্যর সম্পর্ক ছাড়াও এই ধারাবাহিকে অন্যান্য চরিত্রগুলিও যথেষ্ট আকর্ষণীয় হয়ে উঠেছে। তার মধ্যে অন্যতম হলো জেঠাইয়ের মেয়ে চিনি। সম্প্রতি দেখানো হয়েছে তার শ্বশুরবাড়িতে বারবার অশান্তি হচ্ছে। তাই সে সিদ্ধান্ত নিয়েছে সে চাকরি করবে যাতে নিজের জীবন সে নিজেই গুছিয়ে নিতে পারে।

এই চিনির দাম্পত্য জীবনের সমস্যার সাথে সাথেই গুনগুনের আর এক ননদ সাঁজির কাহিনী দেখানো হচ্ছে। পটকার মেয়ে সাঁজি, অল্প বয়সে একটি ভুল ছেলেকে ভালবেসে বিয়ে করে ফেলে। তারপর তার ফল ভুগতে হয় তাকে। জানতে পারে তার স্বামী এবং শ্বশুরবাড়ির সবাই জালিয়াত। পুলিশ এসে তাকে বাঁচায়।

এইবার দেখানো হচ্ছে অতীতের খারাপ স্মৃতি ভুলে সাঁজি নতুন জীবনে মানিয়ে গুছিয়ে নিচ্ছে। এখন একটি কলেজে চাকরি করছে সে। কিন্তু সেখানেও কলিগ থেকে শুরু করে, তার কলেজের এইচ‌ওডি অর্জুন তাকে নানাভাবে বিরক্ত করছে। সাঁজি রেগে গিয়ে ওই চাকরি ছেড়ে দেয়। কিন্তু ঝগড়া করলেও সাঁজির প্রতি মনের মধ্যে একটি দূর্বলতা তৈরি হয় অর্জুনের।

সাঁজি কলেজ না এলে তাকে দেখতে না পেয়ে ছুটতে ছুটতে তার বাড়ি পর্যন্ত চলে যায়। অর্জুনের মনের মধ্যে কী চলছে সেটা কলেজের প্রিন্সিপাল ধরে ফেলেছেন এবং তিনি সেই বিষয়ে কথা বলছেন সাঁজির সাথে।

এই সংক্রান্ত একটি ভিডিও এখন ভাইরাল হয়ে গেছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। দর্শকদের যথেষ্ট ভালো লেগেছে এই বিষয়বস্তু। একদিকে যেমন অন্যান্য ধারাবাহিকগুলিতে নানা সমস্যার কথা তুলে ধরা হচ্ছে সেখানে এই ধারাবাহিকে সমস্যা থেকে বেরিয়ে এসে জীবনে এগিয়ে যাওয়ার গল্প বলা হচ্ছে। একটি ভুল বিয়ে এবং খারাপ মানুষের থেকে বেরিয়ে এখন একটি মেয়ে নিজেকে আবার গড়ে তুলতে চেষ্টা করছে।

About Desk Five

Check Also

‘সবচেয়ে খারাপ পারফর্ম করেছে…’, পুরুষ লিড ছবিগুলি সবথেকে অসফল ছিল বিদ্যার! কেন?

কেরিয়ারের শুরুর দিনগুলি যে কোনও মানুষের কাছেই খুব চাপের। অভিনেত্রী বিদ্যা বালানের কেরিয়ারের শুরুটা কেমন …

Leave a Reply

Your email address will not be published.